,

বাংলা নব বর্ষের মেলা উপলক্ষে ব্যস্ত সময় পার করছে মৃৎ শিল্পীরা

রফিক মজিদ : বৈশাখ এলেই যেন বাঙালী প্রাণের স্পন্দন ফিরে পায়। বৈশাখ বা নববর্ষকে সাঁজাতে এবং উৎসবকে ঘিরে নানা আয়োজনের মধ্যে শুধু পান্তা ইলিশই নয়, ঘরে ঘরে চলে পোলাও-কোরমা রান্না, কেনা-কাটা ও আত্বিয়স্বজনদের দাওয়াত করে খাওনোর নানা প্রস্তুতি। এছাড়া গ্রামে গঞ্জের বিভিন্ন মেলায় দোকানী এবং গ্রামীণ খেলাধূলার নানা প্রস্তুতি যেন মনে করিয়ে দেয় এইতো বৈশাখ এসে গেলো। বৈশাখের এসব নানা আয়োজন প্রস্তুত করতে শেরপুর জেলায় ইতিমধ্যে ব্যস্ত সময় পার করছে জেলার বিভিন্ন এলাকার পাল পাড়া’য় (কুমার) মৃৎ শিল্পীরা। বৈশাখের আগেই প্রস্তুত করতে হবে নববর্ষ বরনের নানা সরঞ্জামাদী ও মেলার পসড়া।

পহেলা বৈশাখ এবং বাংলা নব বর্ষের বর্ষ বরণ ও বিভিন্ন স্থানে মেলা উপলক্ষে শেরপুরের পাল পাড়ায় চলছে ব্যস্ত সময়। নব বর্ষের বর্ষ বরণ এবং বিভিন্ন স্থানের মেলায় মাটির পাত্র, বিভিন্ন খেলনা যেমন বাঘ, হরিণ, গরু, ঘোড়া থেকে শুরু করে বিভিন্ন পশু-পাখি, ফুলের টব, রকমারী পুতুল তৈরী করতে বিরামহীন কাজ করছে পালেরা। প্রথমে মাটি প্রস্তুত করে তা দিয়ে বিভিন্ন সামগ্রী তৈরী করে রোদে শিকিয়ে নেওয়া হয়। এরপর তা আগুনে পুড়িয়ে রঙ এর কাজ করে শেষ বারের মতো শুকিয়ে প্রস্তুত করা হয় বিভিনন খেলনা, শো পিছ এবং নানা গৃহস্থলী আসবাবপত্র।

তারা জানায়, বংশানুক্রমের নিয়মানুযায়ী তারা পুরো বৈশাখ মাস কেউ কোন কাজ করবে না। ফলে ফাল্গুন-চৈত্র এই দুই মাস কাজের চাপ বেশী থাকে। এসময়ের মধ্যে রাত জেগে হলেও ৩০ চৈত্রের মধ্যে তাদের কাজ শেষ করবে।

নববর্ষের প্রথম দিন বা পহেলা বৈশাখে জেলার সরকারী ও বেসরকারী বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান থেকে পাল পড়ায় বিভিন্ন মাটির আসবাব পত্র অর্ডার দেওয়া হয়েছে। ইতিমধ্যে এসব আসবাবপত্র তৈরী করে মওজুদ করা হয়েছে। সময়মত এসব মালামাল ডেলিভারি করা হবে বলে জানালেন তারা।

সারা বছর মাটির বিভিন্ন পাত্র তৈরী করা হলেও বর্তমানে বৈশাখ ও মেলা উপলক্ষে গৃহস্থলী আসবাবপত্র, খেলনা ও শো পিছ তৈরী করে কেউ কেউ শুকিয়ে পোড়ার কাজ করছে আবার কেউ কেউ পেড়ানো শেষ করে রঙ এর কাজ করছে। রঙ শুকিয়ে গেলেই বাজারের পাইকারদের কাছে বিক্রি করা হবে।

এদিকে পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে গ্রামীণ বিভিন্ন মেলায় পসড়া সাজানো দোকানীরা পাল পাড়ায় আসতে শুরু করেছে। তারা তাদের পছন্দের মাটির বিভিন্ন খেলনা ও আসবাবপত্র কিনে নিয়ে যাচ্ছে। পহেলা বৈশাখের আগেই তারা মেলার বিভিন্ন মালামাল পাইকারী দরে কিনে নিয়ে মওজুদ করছে। যাতে গ্রামীণ মেলায় ঘুরে ঘূরে বিক্রি করতে পারে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© 2016 allrights reserved to AlokitoSherpur.Com | Desing & Developed BY Popular-IT.Com Server Managed BY PopularServer.Com